সব
ঢাকা Translate Bangla Font Problem

অপারেশন টেবিলে রোগীর মৃত্যু, চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ, আটক-১

AUTHOR: Firoz
POSTED: Thursday 25th July 2019at 4:55 pm
203 Views

মোঃ রবিউল ইসলাম, বিরামপুর (দিনাজপুর): দিনাজপুরের বিরামপুরে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় অপারেশন টেবিলে রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

এ ব্যাপারে গতকাল বৃহস্পতিবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-৪৪। পুলিশ হাসপাতালের ম্যানেজার ফারজানা ইয়াসমিন জলিকে আটক করে বৃহস্পতিবার জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন।

জানা গেছে, শহরের দোয়েল মোড়ে অবস্থিত আনাসা হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে গত বুধবার (২৪ জুলাই) সকালে পৌর এলাকার বিছকিনী গ্রামের আবু তালেবের স্ত্রী রেশমা আক্তার বিজলী (৩৬) জরায়ু অপারেশনের জন্য সেখানে ভর্তি হন। কিন্তু কোন রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই বিকেলে তাকে অপারেশন কক্ষে ঢুকানো  হয়। এরপর অ্যানাসথেসিয়ার সময় রোগীর মৃত্যু ঘটলে তড়িঘড়ি তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে তার বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরে রোগীর স্বজন ও গ্রামবাসী এসে হাসপাতাল ঘেরাও করে এবং প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এবং থানার অফিসার ইনচার্জ এর একটি সম্মিলিত টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাউকে না পাওয়াই এবং উত্তেজক পরিস্থিতি শান্ত করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুর রহমান হাসপাতালটি সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করে একটি নোটিশ টানিয়ে দেন। নিহত রোগীর স্বজনেরা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, এসময় হাসপাতালটিতে ২ জন সিজার ও ১ জন অপারেশনের রোগী ভর্তি ছিল। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যাওয়াই তাদেরকে পার্শ্ববর্তী একটি ক্লিনিকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির জানান, এ বিষয়ে নিহতের চাচা লিয়াকত আলী বাদি হয়ে ৪ জনের নাম সহ আরো অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন এবং এর সাথে সম্পৃক্ত একজনকে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুর রহমান জানান, সেখানে হাসপাতালটির বৈধ কাগজপত্র দেখানোর জন্য কর্তৃপক্ষের কাউকেই পাওয়া যায়নি। এ কারণে আপাতত হাসপাতালটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তীতে বৈধ কাগজপত্র যাচাইয়ের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।