সব
ঢাকা Translate Bangla Font Problem

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৯ জন হাফেজকে পাগড়ী প্রদান ও বার্ষিক হেফজ প্রতিযোগিতা

AUTHOR: Firoz
POSTED: Thursday 28th November 2019at 6:21 am
FILED AS: ধর্ম
194 Views

ইমাম হাসান জুয়েল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর উপজেলার গোবরাতলা ইউনিয়নের চাঁপাই-মহেশপুর দিঘী সংলগ্ন তাহ্সীনুল কোরআন দারুল হেফজ্ মাদরাসায় ১৯ জন হাফেজকে পাগড়ী প্রদান, বার্ষিক হেফজ প্রতিযোগিতা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকালে মাদরাসা মাঠে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সাবেক ইউপি সদস্য মো. আবুল কাসেমের সভাপতিত্বে অতিথির বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগ নেতা মেসবাহুল সাকের জ্যোতি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর হোসেন, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  মোসা. নাসরিন আখতার, গোবরাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আসজাদুর রহমান মান্নু মিয়া, প্যানেল চেয়ারম্যান মো. তাসেম আলী,  ইউপি সদস্য আলহাজ্ব মো. রেজাউল ইসলাম।

তাহ্সীনুল কোরআন দারুল হেফজ্ মাদরাসার সহকারী শিক্ষক মাওলানা মো. আখতারুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, মাদরাসার পরিচালক হাফেজ ক্বারী মো. মাহমুদুল হাসান রুমি ও ইসলামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেসামিয়া মাদরাসার সহকারী শিক্ষক মাওলানা মোহাম্মদ ইসমোতুল্লাহ।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বালিয়াডাঙ্গা ইসলামিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাওলানা মোহাম্মদ সানাউল্লাহ নুরী, সাবেক ইউপি সদস্য মো. কাসেম মিয়া, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মো. ইয়ামিন আলী, মাদরাসার সভাপতি সমাজসেবক আলহাজ্ব ড. মো. একরামুল হক, আলহাজ্ব শামসুদ্দিন মন্ডল, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন, স্থানীয় আ.লীগ নেতা রাফেজ মীরসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ ও মসজিদের ইমামগণ, অভিভাবকবৃন্দ, মাদ্রাসার শিক্ষার্থী এবং স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই মাদরাসার ২০ জন ছাত্র হেফজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এই প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন, চাঁপাই জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম, ঘুঘুডিমা দক্ষিণ জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ  মাওলানা আব্দুল জলিল, কমলাকান্তপুর হাফেজিয়া মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, ঘুঘুডিমা হাফেজিয়া মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল মালেক।

আলোচনা সভায় বক্তারা মাদক, জঙ্গি ও সন্ত্রাসমুক্ত সুখী- সমৃদ্ধ দেশ গঠনে এবং আগামী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ইসলামিক আদর্শে গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখবে এই মাদরাসার ছাত্ররা। ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিতে ও শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে হাফেজরা কাজ করবে বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা। পরে আলোচনা সভা শেষে ১৯ জন হাফেজকে পাগড়ী প্রদান ও হেফজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে অতিথিবৃন্দ।

শেষে দেশ, জাতি এবং মাদরাসার মঙ্গল ও উত্তরোত্তর উন্নতি কামনা করে দোয়া করা হয়।


সর্বশেষ খবর